Sunday, January 22, 2017

যত্ন বা ক্ষত, উদ্দেশ্য- পরিধীর ন্যায় স্পষ্ট
বিধেয় সর্বদা আবছা; সর্বাঙ্গীন এবং দীর্ঘস্থানীয়।
সংক্ষিপ্ততা বর্জিত, আকারহীনতার প্রদর্শনী।
ক্ষুধা, সুগন্ধ, ফুল, শৈশব স্পষ্টত প্রিয়; কিন্তু সুলভ
অপ্রতিসাম্য দৃশ্যত উজ্জ্বল, কল্পনাপ্রসূত, বিরল,
বহিরাগত, ক্ষণিক; তথাপি গুণতন্ত্রের প্রতিরুপ।

যে কোনো পর্বতই এখন নীল, প্রায় দূরত্ব অজ্ঞানবাদী।
মেঘের মতো স্নিগ্ধ; বর্ষণের প্রবলতা ইচ্ছাদত্ত, আবেগনির্ভর; অর্থাৎ স্বার্থপর
তথাপি জ্ঞানী; সৃজনী; গবাক্ষ সংলগ্ন আরামকেদারা।
সহাবস্থান বা সমুদ্রের মতো নোনতা নয়,
অকৃত্তিম স্নেহ বা পক্ষপাতের মতো অট্ট নয়।

কলহে স্তব্ধতা একুল, ওকুলবিহীন; কূলবিহীন।
শান্তি, দ্বন্দ্ব পরিহার্য্য- ভ্রম মাত্র।
প্রাণের বেশি বড় শত্রু মাংশাসী না নিরামিষাশী,
পরিপ্রেক্ষিত বা সংজ্ঞা নির্ভর হওয়া সত্ত্বেও 
সংজ্ঞাগুলির উৎসজনিত সুস্থতা আছে; যেন মেধা - অভাবহীন।
আয়ত্ত্ব, শিক্ষাগত বা সহজাত।

সমস্তই পরিচিত, অনায়াসে বোধগম্য
তবুও পলায়ন, এমন কি সম্মত অনুপস্থিতি ও অনুকূল নয়
কেননা যাত্রা; যাত্রার দীর্ঘকালীনতা সংজ্ঞাবদ্ধ,
কেননা প্রায় সমস্তই পণ্য; মূল্য চিরকাল নির্ধারিত
কেননা প্রাণ আছে; বিবেচনা আছে;
প্রজন্ম আছে।

No comments:

Post a Comment