Friday, June 2, 2017

চকিতে গবাক্ষ হইতে সূর্যরশ্মি
অতীব তীব্রভাবে বিচ্ছুরিত হইতে আরম্ভ করে...
কুন্তীর চক্ষুযুগল ধাঁধাইয়া যায়,
ঠিক মূর্ছা বলা যায় না- একটা ঘোরের মধ্যে প্রবেশ করে কুন্তী।
সম্বিত ফিরিয়া পাইয়া দেখিতে পায়-
ক্রোড়ে এক সদ্দ্যজাত ফুটফুটে শিশু;
আনন্দে আত্মহারা, সে অরুণদেবকে প্রণাম করিয়া
দ্রুতপদে কক্ষ হইতে বিদায় লয়।

বাসক উদ্দেশে ধাবনকালে পার্শবর্তী কাননে
এক অভূতপূর্ব দৃশ্য প্রতক্ষ্য করিয়া, চমক লাগিয়া যায় তার-
অনতিদূরে, সুতনু এক শিখীযুগল মানবকণ্ঠে হাঁকিয়া উঠে-
"আমাদের একটু বলে দেবেগা বৌঠাকুরুন, তোমাদের পদ্ধতিটা?
বড় সাহেব নিষেধ করেছেন- আমাদের ওইভাবে কিছু করতে নাইগা-
আমরা জাতীয় পাখী বলে কতা!"

কুন্তী নির্বাক, মুখে টু শব্দটি নাই- অপ্রতিভ নিস্তব্ধতা।
নিরাশ শিখীযুগল একে অপরের দিকে কিয়ৎক্ষণ চাহিয়া থাকে
এবং চুরুট সেবনে ব্যস্ত হইয়া পড়ে।

No comments:

Post a Comment