Friday, June 29, 2018

মনুষ্যফলের, বিশেষপক্ষে আমাদিগের, এক অদ্ভুত ব্যারাম আছে।
আমাদিগের এক ভীষণ বড় অবসর- অতীত-আর্তি।
আহা তখনকার অমুক!
অথবা আর এক চর্চিত 'আহা',
সেই অমুক হইলে কি তমুকটাই না হইতে পারিত!

কিন্তু তাহা হইতে অনেক অধিক ক্রিয়াপ্রবল- ভবিষ্যৎ।
অথচ তাহা লইয়া আমরা অতটা চিন্তাশীল, 
অতএব বিচলিত হইনা।


প্রাতঃরাশ আর সান্ধভোজ মানবসমাজে অনায়াসে সাবলীল।
যেমন জিরাফের কন্ধর সময়ক্রমে আপনি দীর্ঘ হয়।
যেমন ফি রবিবারের মধণ্যভোজে
আলু সহযোগে খাসির মাংসের ঝোল আর ভাতের উপকারিতা,
নিদিনপক্ষে আমাদিগের,
পাঠ্যক্রমের অন্তর্ভুক্ত করিবার প্রয়োজন হয়না।

শিক্ষয়িত্রী এবং শিক্ষকের অন্যতম কর্তব্য তথা-
তাহাদের সমস্ত শিক্ষাপ্ৰদান অথবা তত্ত্বের
ক্ষুধা কিম্বা প্রবৃত্তির সহিত সম্পর্কস্থাপন।
কেননা ক্ষুধা স্বভাবত অতীত হইতে ভীষণভাবে বৃহত্তর।


প্রবৃত্তি- অনুপ্রেরণা, শিল্পবোধ, নিয়ম ইত্যাদি হইতে বঞ্চিত
তথা- পরম ধ্রুব।

No comments:

Post a Comment